শিরোনাম :
নরসিংদীতে বইমেলার উদ্বোধন রায়পুরা উপজেলা প্রেসক্লাবের উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ নরসিংদীতে সাধু সঙ্গ অনুষ্ঠিত নরসিংদীর শীলমান্দীতে প্রধান শিক্ষকের হাতে শিক্ষিকা লাঞ্ছিত জার্মানে মোশাররফ হোসেন ভূইয়ার লেখা দুটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নরসিংদীতে স্ত্রী হত্যায় পলাতক স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ নরসিংদীতে আ.লীগ নেতা এড. আসাদোজ্জামানের স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত শালুরদিয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সম্পন্ন আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে সৃজনশীল মেধা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে জার্মানির চ্যান্সেলর এর বৈঠক
শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২:২১ পূর্বাহ্ন

নরসিংদী সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হতে চান কায়কোবাদ হোসেন

স্টাফ রিপোর্টার / ২১০ বার
আপডেট : শুক্রবার, ১৯ জানুয়ারী, ২০২৪

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন শেষ হওয়ার পর বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন (ইসি) উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফশিল ঘোষনার জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করছেন। এ খবর গণমাধ্যম ও বিভিন্ন সূত্রে প্রকাশিত হওয়ার পর থেকে সম্ভাব্য প্রার্থীদের মাঝে দৌড়ঝাপ শুরু হয়ে গেছে। এদিকে আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে নরসিংদী সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী হতে চাচ্ছেন কায়কোবাদ হোসেন কানু। তিনি জেলা তাঁতী লীগের আহ্বায়ক। কায়কোবাদ হোসেন কানু আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠনের নেতা হিসেবে স্থানীয় রাজনীতিতে সক্রিয় ভূমিকা রেখে এবারের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নরসিংদী সদর-১ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম হিরো (বীর প্রতীক) এর আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন।

তিনি ১৯৬২ সালের ১৩ অক্টোবর শহরের পূর্ব দত্তপাড়া গ্রামের সম্ভান্ত্র মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। বাবা মরহুম মালু মিয়া ছিলেন নরসিংদী বাজারের সুনামধন্য ব্যবসায়ী ও মাতা মনোয়ারা বেগম ছিলেন গৃহিণী। ৫ ভাই ২ বোনের মধ্যে তিনি দ্বিতীয়। বর্তমানে তিনি উত্তর সাটির পাড়া (শিববাগ) এলাকায় পরিবার-পরিজন নিয়ে বসবাস করছেন। রাজনীতির পাশাপাশি রয়েছে তার কৌশিক এন্টারপ্রাইজ নামক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান।
রাজনৈতিক পরিচিতি :- জেলা তাঁতী লীগের আহ্বায়ক (২০১৭), শহর ছাত্রলীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক (১৯৮২), জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি (১৯৮৫), শহর আওয়ামী যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক (১৯৯১) ও শহর আওয়ামী যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক (১৯৯৪)।
কায়কোবাদ হোসেন কানু বলেন, “আওয়ামী পরিবারের সদস্য হিসেবে আমি রাজনীতির পাশাপাশি দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে জড়িত। আওয়ামী রাজনীতি করতে গিয়ে ১৯৯৯ সালে বিএনপি সন্ত্রাসীদের হামলায় আমার আপন ছোট ভাই শহর যুবলীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক নেয়ামত উল্লাহ লিটু নিহত হন। এছাড়াও বহুবার জামাত-বিএনপির হামলার স্বীকার হয়েছি। তারপরও বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশের বাইরে যাইনি। নেত্রীর নির্দেশ বরাবরই শিরোধার্য মনে করে রাজপথে লড়াই সংগ্রামে সম্মুখ সারিতে থেকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছি। তাই সেবার পরিধি বাড়াতে এবং উপজেলা জুড়ে বর্তমান সরকারের চলমান উন্নয়নের সারথি হতে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করার সিদ্ধন্ত নিয়েছি। তিনি আরও বলেন, আমার অভিভাবক নরসিংদীর ইতিহাস সৃষ্টিকারী চতুর্থবারের মত নির্বাচিত মাননীয় সংসদ সদস্য মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম হিরো (বীর প্রতীক) এমপির নির্দেশনায় আপামর জনসাধারণের জন্য কাজ করে যেতে চাই। আমার বিশ্বাস, বঙ্গবন্ধুর তনয়া, মানবতার নেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে মনোনয়ন দেবেন। আমি নির্বাচনে জয়ী হলে সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন স্মার্ট বাংলাদেশের অংশীদার হয়ে কাজ করে যাবো।

Facebook Comments Box


এ জাতীয় আরো সংবাদ